জন্ম নিবন্ধন ১৭ ডিজিট করার নিয়ম

জন্ম নিবন্ধন ১৭ ডিজিট করার নিয়ম

আমাদের জন্ম নিবন্ধন সনদপত্রটি যদি ১৭  ডিজিটের না হয় তাহলে আমরা অনলাইনে জন্ম সনদ খুঁজে পাবো না। জন্ম নিবন্ধন ১৭ ডিজিট করার নিয়ম  সম্পর্কে আজকের এই লেখাটি, কিভাবে আপনারা জন্ম সনদ ১৭ ডিজিট করবেন?

১৭ ডিজিটের জন্ম নিবন্ধন সনদ কিভাবে করবেন

বর্তমানে জন্ম নিবন্ধন সনদ নাম্বারটি সাধারণত ১৭  ডিজিটের হয়ে থাকে।  পূর্বে যারা জন্ম নিবন্ধন কার্ড তৈরি করেছেন তাদের জন্ম নিবন্ধন নাম্বার হলো ১৬  ডিজিটের,  কিন্তু পরবর্তীতে ইন্টারনেট ব্যবস্থা চালু হওয়ার কারণে সহজেই সকল তথ্য ইন্টারনেটে খুঁজে পাওয়া  যাবে এজন্য জন্ম সনদ গুলো ১৭  ডিজিট করা হয়েছে।

জন্ম নিবন্ধন ১৭ ডিজিট করার নিয়ম  সম্পর্কে আজকের এই পোস্টটি,  পোস্ট টির মাধ্যমে জন্ম নিবন্ধন ১৭  ডিজিট কিভাবে করবেন সে সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে। আমাদের জন্ম সনদ এর নাম্বার যদি ১৭  ডিজিটের না হয় তাহলে আমরা অনলাইনে জন্ম সনদের তথ্য খুঁজে পাবো না।

যারা  অনেক আগে জন্ম নিবন্ধন কার্ড তৈরি করেছেন তাদের তথ্য অনলাইনে অনেক সময় খুঁজে পাওয়া যায় না কারণ তাদের জন্ম নিবন্ধন ১৬  ডিজিটের। অনলাইনে জন্ম নিবন্ধনের তথ্য খুঁজে পেতে হলে অবশ্যই জন্ম নিবন্ধনটি  অনলাইন করে ১৭   ডিজিটের করতে হবে।

জন্ম নিবন্ধন ১৭ ডিজিট কেন করবেন

পূর্বে জন্ম নিবন্ধন গুলো ১৬  ডিজিটের করা হত, কিন্তু বর্তমানে জন্ম নিবন্ধন তৈরি সিস্টেম আপডেট এর ফলে এবং অনলাইনের ব্যবহারে ও জনসংখ্যা বৃদ্ধির কারণে জন্ম নিবন্ধন ১৭  ডিজিটের করা হয়েছে। পূর্বে যারা ১৬  ডিজিটের জন্ম নিবন্ধন করেছিলেন তাদেরকে অবশ্যই অনলাইন করে  জন্ম নিবন্ধন ১৭  ডিজিটের করে নিতে হবে।

আমরা যদি জন্ম নিবন্ধন ১৭  ডিজিটের না করি তাহলে আমরা এই জন্ম নিবন্ধন সনদ দিয়ে কোন কাজ করতে পারবো না,  অনলাইনের আমাদের তথ্য খুঁজে পেতে হলে অবশ্যই আমাদের জন্ম নিবন্ধন সনদটি ১৭ ডিজিটের হতে হবে। তাই যারা এখনও জন্ম নিবন্ধন সনদ অনলাইন করেন নাই অতি দ্রুত অনলাইন করে নিবেন।

 বর্তমানে ইন্টারনেটের যুগে আমাদের সকল তথ্য ইন্টারনেট ব্যবহার করে চেক করা হয় আমরা যদি কোন চাকরির ইন্টারভিউ দিতে যাই বা কোন ভাল প্রতিষ্ঠান পড়ালেখার জন্য ভর্তি হতে যাই তখন আমাদের তথ্যগুলো ইন্টারনেটে চেক করবে আর ইন্টারনেটে আমাদের জন্ম সনদ এবং তথ্য চেক করার জন্য অবশ্যই আমাদের জন্ম নিবন্ধনটি ১৭ ডিজিটের হতে হবে।

১৭ ডিজিটের জন্ম নিবন্ধন চেক

পূর্বে আমাদের জন্ম নিবন্ধন গুলো ১৬  ডিজিটের তৈরি করা হতো কারণ ওই সময় কোন ব্যক্তির তথ্য ওই ইউনিয়ন পরিষদ বা পৌরসভায় রেজিস্টার খাতায় লিপিবদ্ধ করে রাখা হতো এবং একটি হাতে লেখা জন্ম নিবন্ধন সনদ প্রদান করা হতো। ওই সময় জন্ম নিবন্ধন এর নাম্বার ছিল ১৬  ডিজিটের।

কিন্তু বর্তমানে সরকার অনলাইন ভিত্তিক কার্যকলাপ শুরুর কারণে ইন্টারনেটভিত্তিক সুবিধা চালু হওয়ার পরে এখন সকল তথ্য অনলাইন ডাটাবেজে সংগ্রহ করা হয়। এবং ওই সময় যাদের জন্ম নিবন্ধন কার্ডটি ১৭  ডিজিট করা হয়নি তারা জন্ম নিবন্ধন অনলাইনে চেক করতে পারবেন না।

 অনলাইনের মাধ্যমে জন্ম নিবন্ধন চেক করার জন্য অবশ্যই আপনার জন্ম নিবন্ধন নাম্বার ১৭  ডিজিটের হতে হবে,  অনলাইনের মাধ্যমে সহজেই জন্ম নিবন্ধন চেক করতে হলে  এখানে ক্লিক করে জন্ম নিবন্ধন নাম্বার ও তারিখ দিয়ে অনলাইনে জন্ম  নিবন্ধন চেক করার পদ্ধতি জানুন।

জন্ম-নিবন্ধন ১৭  ডিজিট করার নিয়ম

জন্ম নিবন্ধন ১৭  ডিজিট করতে হলে আপনাকে নিচের পদ্ধতি ফলো করতে হবে। আমাদের জন্ম নিবন্ধন কার্ড এর নাম্বার যদি ১৭  ডিজিটা না হয় তাহলে আমাদের জন্ম নিবন্ধন কার্ড অনলাইন করা না,  জন্ম নিবন্ধন ১৭  ডিজিট করার নিয়মঃ

জন্ম নিবন্ধন সনদ পত্রটি ১৭  ডিজিট করার জন্য আপনার পূর্বে থাকা ১৬  ডিজিটের নাম্বার টির শেষ ৫  ডিজিটের আগে আপনাকে একটি ০  যোগ করতে হবে। এবং জন্ম সনদ নাম্বারটির প্রথম ৪ ডিজিট হবে ব্যক্তির জন্ম সাল এবং  সর্বশেষ ৬  ডিজিট হবে ব্যক্তির পরিচিতি নাম্বার।

সাধারণত পূর্বের জন্ম নিবন্ধন নাম্বার গুলো শেষের ৫  ডিজিট হয় ব্যক্তির পরিচিতি নাম্বার তাই আপনাকে শেষের ৫  ডিজিটের আগে একটা ০  যোগ করতে হবে তাহলে ১৭  ডিজিটের জন্ম নিবন্ধন নাম্বার তৈরি হবে। আশা করি আপনাদের প্রশ্নের সঠিক উত্তর পেয়েছেন। 

আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদ নাম্বারটি যদি ১৬  ডিজিটাল হয় তাহলে আপনি অনলাইনে জন্ম নিবন্ধন সার্চ দিলে  নট ফাউন্ড লেখা আসবে।  তাই যারা এখনও জন্ম নিবন্ধন অনলাইন করেননি তারা দ্রুত জন্ম নিবন্ধন সনদপত্র অনলাইন করে নিবেন।

জন্ম নিবন্ধন নাম্বার অনলাইন 

জন্ম নিবন্ধন নাম্বার অনলাইন করা থাকলে আপনার জন্ম নিবন্ধন নাম্বারটি হবে ১৭  ডিজিটের। তথ্য প্রযুক্তির উন্নতির ফলে বর্তমানে সকল তথ্য অনলাইন ডাটাবেজে সংরক্ষিত করা হয় তাই আপনার জন্ম নিবন্ধন কার্ড যদি অনলাইন করা না থাকে তাহলে আপনার তথ্য ইন্টারনেটে খুজে পাওয়া যাবেনা এবং আপনি এই জন্ম নিবন্ধন সনদ দিয়ে কোন কাজ করতে পারবেন না।

জন্ম নিবন্ধন অনলাইন করতে হলে  বা জন্ম নিবন্ধন নাম্বার ১৭  ডিজিট করতে হলে আপনাকে প্রয়োজনীয়  কাগজপত্রসহ আপনার পুরাতন জন্ম নিবন্ধন কার্ড আপনার ইউনিয়ন/  সিটি কর্পোরেশন/  পৌরসভায় জমা দিতে হবে। এবং সেখান থেকে সকল কিছু ভেরিফাই হলে আপনাকে নূতন জন্ম নিবন্ধন সনদ প্রদান করা হবে।

আরো পড়তে পারেন: জন্ম নিবন্ধন যাচাই yyyy mm dd

Scroll to Top