মোবাইল দিয়ে ফাইবারে কাজ

আমরা যারা ফ্রিল্যান্সিং নিয়ে টুকটাক ঘাটাঘাটি করি তারা অবশ্যই ফাইবারের নাম শুনেছি। ফাইবার হলো একটি মার্কেটপ্লেস যেখান থেকে আপনারা ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ গুলো বায়ারের কাছ থেকে নিতে পারবেন।  অথবা যে সকল কোম্পানির যেকোনো কাজ করিয়ে নিতে চান তারা ফাইবার এর মাধ্যমে কাজ করিয়ে নিতে পারবে। মোবাইল দিয়ে ফাইবারে কাজ সম্পর্কে এই লেখাটিতে আমরা বিস্তারিত আলোচনা করেছি।

ফাইবারের কাজ কি 

ফাইবার হলো একটি মার্কেট প্লেসের নাম।  যেখানে সাধারণত দুই ধরনের লোক থাকে। 

  • বায়ার
  • কাস্টমার/ ফ্রিল্যান্সার 

বায়াররা মূলত আসে তাদের কোম্পানি বা তাদের প্রয়োজনীয় কাজগুলো এক্সপার্ট ফ্রিল্যান্সার থেকে করিয়ে নিতে। আর ফ্রিল্যান্সারদের কাজ হল বায়ারের কাছ থেকে কাজগুলো নিয়ে সঠিকভাবে সেটিকে সম্পূর্ণ করে দেওয়া।  এর বিনিময়ে বায়ার আপনাকে আপনার প্রদত্ত পেমেন্ট প্রদান করবে।

বর্তমানে জনপ্রিয় যতগুলো মার্কেটপ্লেস আছে তার মধ্যে ফাইবার অন্যতম। বাংলাদেশ ও ভারত থেকে অনেক অনেক ফ্রিল্যান্সাররা ফাইবার এর মাধ্যমে কাজ করে টাকা ইনকাম করতেছে।  ফাইবার মার্কেটপ্লেস বাহিরের দেশ থেকেও অনেক কাজ নেয়া যায়।  আপনি যদি ফ্রিল্যান্সিংয়ের কোন সেক্টরে এক্সপার্ট হয়ে থাকেন তাহলে আপনি ফাইবারে কাজ করতে পারেন।

কিভাবে মোবাইল ব্যবহার করে ফাইবারে কাজ করা সম্ভব

অনেকে মনে করে মোবাইল দিয়ে ফাইবার মার্কেটপ্লেস এ কাজ করা সম্ভব না।  তাদের ধারণা সম্পূর্ণ ভুল আপনারা মোবাইল ফোন ব্যবহার করে ফাইবারে কাজ করতে পারবেন। বর্তমানে মোবাইল ফোনের প্রযুক্তি অনেক উন্নত আপনারা চাইলে এখান থেকে সকল কাজ করতে পারবেন।  

মোবাইল ফোনের মাধ্যমে যেকোনো একটি ব্রাউজার এ গিয়ে আপনি ফাইবার লগইন করে ওখান থেকে ডেক্সটপ মোড করে ব্যবহার করতে পারেন। এছাড়াও ফাইবারে আপনি মোবাইল দিয়ে ফ্রিল্যান্সিং করতে পারবেন ফ্রিল্যান্সিংয়ের অনেক কাজ আছে যেগুলো মোবাইল দিয়ে করা সম্ভব। 

মোবাইল দিয়ে ফাইবারে কি কি কাজ করা যায় 

মোবাইল ব্যবহার করে আপনারা ফাইবারে অনেক ধরনের কাজ করতে পারবেন তার মধ্যে যে কাজগুলো সবথেকে সহজ ও ইজিলি ভাবে করতে পারবেন সেগুলো নিচে বর্ণনা করা হলো।

  • ডিজিটাল মার্কেটিং

আপনারা মোবাইল ব্যবহার করে ফাইবার এর মাধ্যমে ডিজিটাল মার্কেটিং এর কাজ করে টাকা ইনকাম করতে পারবেন।  মোবাইল দিয়ে ডিজিটাল মার্কেটিং করে বর্তমানে অনেকেই টাকা ইনকাম করছে । ফ্রিল্যান্সিং জগতের ডিজিটাল মার্কেটিং এমন একটি সেক্টর যে সেক্টরে আপনি অল্প কিছু কাজ শিখে ও টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

  • কনটেন্ট রাইটিং

মোবাইলের মাধ্যমে ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ করার সবথেকে সহজ সেক্টর হল কনটেন্ট রাইটিং।  আপনার মোবাইলে যদি নোটপ্যাড থাকে বা আপনি প্লে স্টোর থেকে একটি নোটপ্যাড  এর অপ্লিকেশন ডাউনলোড করে ওখানে লেখালেখি করতে পারবেন।

 কনটেন্ট রাইটিং হল কোন ওয়েবসাইটের জন্য আর্টিকেল লেখা বা কোন অ্যাড এর কনসেপ্ট বা শর্ট ফিল্ম স্ক্রিপ্ট ইত্যাদি।  আপনার যদি এই বিষয়গুলোতে দক্ষতা থাকে তাহলে আপনারা খুব সহজেই ফাইবারে একটি অ্যাকাউন্ট তৈরি করে কনটেন্ট রাইটিং এর কাজ করতে পারবেন।

  • গ্রাফিক্স ডিজাইন

গ্রাফিক্স ডিজাইন এর সাথে আমরা কমবেশি সবাই পরিচিত আছি। মোবাইল ফোন বা কম্পিউটার ব্যবহার করে কোন শেফকে নূতনভাবে রূপ দেওয়াকে গ্রাফিক্স ডিজাইন বলে। আমরা চলতি পথে যত ব্যানার-ফেস্টুন বা কোন মুভির ট্রেইলার ইত্যাদি দেখতে পায় সেগুলো সব গ্রাফিক্স ডিজাইন এর কাজ।

আপনার যদি গ্রাফিক্স ডিজাইন সম্বন্ধে আইডিয়া থাকে বা আপনি যদি মোবাইল এর মাধ্যমে ভালো কিছু তৈরি করতে পারেন তাহলে এই বিষয় নিয়ে আপনি ফাইবারে কাজ করতে পারেন।  ফাইবার মার্কেটপ্লেস এ বর্তমানে গ্রাফিক্স ডিজাইনের প্রচুর চাহিদা রয়েছে।

  • ভিডিও এডিটিং বা ভিডিও এনিমেশন

বর্তমান বাজারে অনেক ভালো ভালো মোবাইল এপ্লিকেশন আছে যেগুলোর মাধ্যমে আপনি খুব সুন্দর ও  প্রফেশনাল  ভাবে ভিডিও এডিটিং করতে পারবেন। যেমন :  কাইনমাস্টার, পাওয়ারদিরেক্টর,  ইনশট  ইত্যাদি। এজাতীয় অনেক ফ্রি প্রিমিয়াম অ্যাপ্লিকেশন পাওয়া যায় এগুলো ব্যবহার করে আপনি খুব সুন্দর ভাবে ভিডিও এডিটিং করতে পারবেন।

আপনার যদি ভিডিও এডিটিং সম্পর্কে  প্রপার ধারনা থাকে তাহলে আপনি ফাইবার মার্কেটপ্লেস এ এই বিষয় নিয়ে কাজ করতে পারেন।  আপনি চাইলে মোবাইল দিয়ে খুব সুন্দর ভাবে ভিডিও এডিটিং করে ফাইবারে কাজ করতে পারবেন। 

ফাইবার একাউন্ট তৈরি করার নিয়ম 

এবার অনেকের মনে প্রশ্ন আসতে পারে আমরা কিভাবে মোবাইল থেকে ফাইবার একাউন্ট তৈরি করব।  ফাইবার একাউন্ট তৈরি করার জন্য প্রথমে আপনাকে ফাইবার এর ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে হবে।

  • আপনি যদি গুগলের যে কোন ব্রাউজার এ গিয়ে সার্চ করেন Fiverr লিখে তাহলে প্রথমেই তাদের ওয়েবসাইট পেয়ে যাবে ওখানে প্রবেশ করুন।
  •  এরপরে আপনি যেকোনো একটি জিমেইল, ফেসবুক অ্যাকাউন্ট, অ্যাপেল একাউন্ট  দিয়ে লগইন করে নিবেন।
  •  যে পদ্ধতি ব্যবহার করে লগইন করবেন সেখানে মেইলের মাধ্যমে আপনাকে একটি লিঙ্ক পাঠানো হবে  ফাইবার থেকে।  ওই লিংকে ক্লিক করে একাউন্ট ভেরিফিকেশন করে নিন।
  •  এরপর প্রয়োজনীয় সকল অর্থগুলো দিয়ে আপনার অ্যাকাউন্টটি কে সুন্দরভাবে সাজিয়ে নিন।
  • এখন ফাইবারে গিগ তৈরি করার পালা।
  •  ফাইবারে কিভাবে খুব সুন্দর ভাবে একটি গিগ তৈরি করবেন সে সম্পর্কে জানতে ইউটিউবে সার্চ করুন।

ফাইবারে কাজ পেতে কত সময় লাগতে পারে 

সবথেকে বেশি জানতে যাওয়া প্রশ্ন গুলোর মধ্যে এটি অন্যতম।  অনেকে ফাইবারে একাউন্ট খুলে রাখছে কিন্তু কাজ পাচ্ছে না এর একমাত্র কারণ হল তার ফাইবার একাউন্ট টি সুন্দরভাবে সাজানো নেই। এবং তার কাজের মান অত ভালো না।

 আপনি যদি ফাইবারে বেশি বেশি কাজ পেতে চান তাহলে অবশ্যই আপনার ফাইবার একাউন্ট প্রথমে খুব সুন্দর ভাবে সাজাতে হবে ফাইবারে গিগ সুন্দরভাবে সাজাতে হবে। এরপরে আপনার কাজ কোয়ালিটি ভালো থাকতে হবে যাতে বায়াররা খুব সুন্দর রিভিউ দেয়।

ফাইবারে বেশি বেশি কাজ পাওয়ার অন্যতম আরেকটি  টিপস হলো আপনি দ্রুত বায়ার এর কাজগুলো সম্পন্ন করে দিবেন। ফাইবার মার্কেটপ্লেস এ বেশি বেশি কাজ পাবার জন্য অবশ্যই আপনাকে ফাইবার গিক সুন্দরভাবে তৈরি করতে হবে এবং বায়ারদের সন্তুষ্ট করতে হবে।

আশা করি মোবাইল দিয়ে ফাইবারে কাজ সম্পর্কে আপনারা বুঝতে পেরেছেন।  ফাইবার গিগ কিভাবে তৈরি করবেন এ সম্পর্কে বেশি আলোচনা করা হয়নি।  এ সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করে লিখে বুঝানো সম্ভব না আপনারা ইউটিউব দেখে খুব সহজেই সুন্দর একটি গিগ তৈরি করে নিতে পারবেন ফাইবার মার্কেটপ্লেসে।

আরো পড়তে পারেন: অনলাইন জব মোবাইল

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *