রেডমি ফোনের দাম বাংলাদেশ

বর্তমানে বাংলাদেশের জনপ্রিয় মোবাইল ব্র্যান্ড গুলোর মধ্যে অন্যতম হচ্ছে রেডমি। আমরা যারা মোবাইল ফোন ব্যবহার করি রেডমি কোম্পানির নাম শুনি নাই এমন লোক খুঁজে পাওয়া দায়। রেডমি ফোনের দাম বাংলাদেশ এ কেমন সে সম্পর্কে এই লেখাটিতে আমরা আলোচনা করব।

রেডমি মোবাইল বাংলাদেশ 

বর্তমানে বাংলাদেশের তরুণ সমাজের কাছে খুব জনপ্রিয় একটি মোবাইল ফোন ব্র্যান্ড কোম্পানি হলো রেডমি।  তুলনামূলকভাবে তাদের মোবাইল ফোন গুলোতে দাম কম থাকার কারণে সকলেই এই ফোনগুলো পছন্দ করে।  এবং এই ফোনগুলোতে রয়েছে সকল আধুনিক ফিচারসমূহ। 

সকল শ্রেণীর মানুষের কথা চিন্তা করে রেডমি কোম্পানি বিভিন্ন দামের ফোন তৈরি করে যা সকলে ক্রয় করতে পারবে তাদের সাধ্য অনুযায়ী। বাংলাদেশের মানুষের কাছে রেডমি খুব জনপ্রিয় একটি নাম। চলুন জেনে আসি রেডমি ফোনের দাম বাংলাদেশ ও বাংলাদেশ রেডমি কোম্পানির মোবাইল গুলো অনেক জনপ্রিয় কেন।

রেডমি মোবাইল জনপ্রিয় হবার কারণ

রেডমি মোবাইল গুলো জনপ্রিয় হবার কারণ হচ্ছে এদের ডিজাইন এবং ফিচারসমূহ।  রেডমি কোম্পানি বিভিন্ন শ্রেণীর মানুষের কথা চিন্তা করে বিভিন্ন দামের ফোন বাজারে  নিয়ে আসে। আপনি কম দাম থেকে শুরু করে অনেক দামি ও রেডমি কোম্পানির মোবাইল ক্রয় করতে পারবেন।

 এবং রেডমি কোম্পানির মোবাইল গুলো খুব আকর্ষণীয় ডিজাইন হয়ে থাকে এছাড়াও এই মোবাইল গুলোর ফিচারসমূহ থাকে খুব আধুনিক এবং আপডেট ভার্সন।  যার কারণে এই ফোনগুলো তরুণ সমাজ অনেক পছন্দ করে বাংলাদেশসহ বিভিন্ন দেশে রেডমি কোম্পানি ফোন গুলো অনেক জনপ্রিয়।

রেডমি ফোন গুলো ব্যবহারের জন্য কেমন হবে 

এটা সম্পূর্ণ নির্ভর করবে আপনার ব্যবহার এর উপরে।  তবে রেডমি ফোন গুলো এর প্রসেসর এবং মাদারবোর্ড অনেক ভালো হয়।  আপনি যদি যত্ন করে ব্যবহার করতে পারেন তাহলে এগুলো অনেকদিন পর্যন্ত ব্যবহার করা সম্ভব হবে। এছাড়াও রেডমি কোম্পানির এই সকল ফোনগুলোতে রয়েছে সকল আধুনিক ফিচার যা আপনার ব্যবহারে সুবিধা হবে।

 রেডমি ফোনের রিভিউ গ্রুপে জয়েন হলেই বোঝা যায় আসলে এই ফোন গুলো কেমন। রেডমি ফোন গুলো সম্পর্কে প্রায় সকলেরই ভালো  মন্তব্য করে।  এই ফোন গুলো তাদের নতুন ফিচার সমুহ দিয়ে গ্রাহকদের নজর কেড়েছে।  আপনারা রেডমি ফোন গুলো কেনার সিদ্ধান্ত নিতে পারেন।

তবে অবশ্যই রেডমি ফোন গুলো কেনার আগে অরজিনাল কিনা সেটা যাচাই করে নিবেন কেননা বর্তমানে অনেক ফেক কোম্পানি আছে যারা রেডমি কোম্পানির নামে কুৎসা রটাচ্ছে।  আজেবাজে ফোন তৈরি করে রেডমি কোম্পানির নামে বিক্রি করতেছে এর থেকে সব সময় সাবধান থাকবেন। 

বাংলাদেশের রেডমি ফোনের দাম কেমন 

রেডমি কোম্পানির বিভিন্ন দামের ফোন আসে তবে আপনার যদি বাজে থাকে ১৫,০০০ – ৩০,০০০ টাকার মধ্যে তাহলে আপনি খুব সুন্দর একটি রেডমি কোম্পানি ফোন পেয়ে যাবেন।  এছাড়াও যাদের বাজেট কম ১০,০০০ টাকার নিচে তারাও চাইলে রেডমি কোম্পানির ফোন ক্রয় করতে পারবেন।

 বর্তমান বাজারে অল্প দামে রেডমি কোম্পানির ভালো ভালো মোবাইল ফোন পাওয়া যায় যারা এ সম্পর্কে জানতে চান তারা নিচের লিংক করে দেওয়া পোস্টটি পড়তে পারেন।  এখানে ১০,০০০  টাকার নিচে বাজেটে অনেকগুলো ভালো ফোন সম্পর্কে আলোচনা করা হয়েছে।

কয়েকটি রেডমি ফোন সম্পর্কে জেনে নেয়া যাক 

চলুন বর্তমান বাজারে বিপুল সুনাম অর্জনকারী কয়েকটি রেডমি ফোন সম্পর্কে জেনে নেয়া যাক। এই ফোন গুলো আপনারা বর্তমান বাজারে কিনতে পেয়ে যাবেন।

Redmi Note 11  

রেডমি কোম্পানির এই মোবাইল ফোনটি বর্তমান বাজারে ব্যাপক নাম করেছে এর আকর্ষণীয় ফিচারস গুলো ব্যবহারকারীদের মন কেরেছে। এই ফোনটিতে আপনারা পেয়ে যাবেন 5000 mAh এর ব্যাটারি। যার কারণে আপনারা দীর্ঘ সময়ে ব্যাটারি ব্যাকআপ পাবেন।

 এবং এই ফোনটির ডিসপ্লে সাইজ হল 6.6 inch সাধারণত যারা গেম খেলেন তারা মুভি দেখতে পছন্দ করেন তাদের জন্য এই ডিসপ্লে খুবই উপকারী হবে। এই ফোনটির RAM এবং ROM এর দিক থেকে 2\3  টি কোয়ালিটি পাবেন 4/6/8 RAM এবং ROM 128/256 GB এই আকর্ষণীয় মোবাইল ফোনটি আপনারা পেয়ে যাবেন মাত্র 15,000-18,000 হাজার টাকার মধ্যে।

 Redmi Note 11 pro+

 Redmi Note 11 এরপরে এই ফোনটি বাজারে এসেছে। ফোনটি তাহার আকর্ষণীয় ফিচার দিয়ে দর্শকদের মন কেরেছে। ফোনটি আপনারা বাংলাদেশের বাজারে পেয়ে যাবেন 22,000 – 25,000 টাকার মধ্যে। ফোনটিতে থাকছে 4500 mAh এর ব্যাটারি এবং ফ্রন্ট ক্যামেরা 16 MP ও ব্যাক ক্যামেরা 108+8+2 যা দিয়ে আপনারা খুব সুন্দর ছবি এবং ভিডিও করতে পারবেন।

এবং যারা গেম খেলতে পছন্দ করেন তাদের জন্য এই ফোনটি বেস্ট হবে কেননা ফোনটিতে রয়েছে 6.67 inch এর বড় একটি ডিসপ্লে এবং 6/8 GB RAM ও 128/256 GB ROM এবং সাথে রয়েছে ফাস্ট চার্জিং ক্যাপাসিটি। অল্প দামে অনেক দারুন ফিচার দিয়ে এই ফোনটিকে তৈরি করা হয়েছে। 

Redmi Note 10s

বর্তমানে বাংলাদেশে এই ফোনটির মার্কেট প্রাইস 22,999 ও 28,999 টাকা। এবং ফোনটিকে পেয়ে যাচ্ছেন আপনারা 8MP এর ফ্রন্ট ক্যামেরা এবং 50+8+8+2 MP ব্যাক ক্যামেরা সাথে থাকছে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর,  ফাস্ট চার্জিং, ফেস আনলক, ইউএসবি সাপোর্ট ইত্যাদি। 

ফোনটিতে ব্যবহার করা হয়েছে 5000 mAh এর ব্যাটারি। যার কারণে আপনারা দীর্ঘ সময়ে ব্যাটারি ব্যাকআপ পাবেন। এবং ফোনটিতে পেয়ে যাবেন আপনারা 4/6 GB RAM ও 64/128 GB ROM ও Mediatek Helio G95 এর একটি প্রসেসর, ফোনটি Android 11 অপারেটিং সিস্টেমের রান করানো

Redmi 9 Active 

ফোনটি একটু পুরনো মডেল কিন্তু ব্যবহারের ক্ষেত্রে কোনটি নিয়মিত নূতন মনে হবে কেননা ফোনটিতে ব্যবহার করা হয়েছে 5000 mAh এর ব্যাটারি এবং সাথে থাকছে 6.53 inch এর বড় একটি ডিসপ্লে এবং 4/6 GB RAM ও 64/128 GB ROM ও সাথে আরও থাকছে ফেস আনলক সিস্টেম, ফাস্ট চার্জিং সিস্টেম ইত্যাদি।

এবং ফোনটির ক্যামেরা সিস্টেম এ ব্যবহার করা হয়েছে 5 MP এর ফ্রন্ট ক্যামেরা এবং 13+2 MP ব্যাক ক্যামেরা। এবং কোনটি Android 10 অপারেটিং সিস্টেমে পরিচালনা করা ও সাথে থাকছে Mediatek Helio G35 এর প্রসেসর। বর্তমানে বাংলাদেশে বাজারে এই ফোনটির দাম 13,999 – 15,999 tk.

রেডমি ফোনের দাম বাংলাদে

শ সম্পর্কে ধারণা দেওয়ার জন্য উপরে আমরা রেডমি কোম্পানির সাধারণ কয়েকটি ফোন সম্পর্কে আলোচনা করেছি এছাড়াও অনেক ফোন রয়েছে যেগুলো আপনারা  বাংলাদেশের মোবাইল মার্কেট এ পেয়ে যাবেন। 

এবং উপরে যে কয়েকটি রেডমি কোম্পানির ফোনের মডেল সম্পর্কে আলোচনা করেছি এই মডেল গুলো সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে আপনারা ফোনটির নাম লিখে গুগলে সার্চ করলেই ফোনটির সম্পূর্ণ ডিটেলস পেয়ে যাবেন।

রেডমি ফোনের দাম বাংলাদেশ

আরো পড়তে পারেন: শাওমি সবচেয়ে কম দামি ফোন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *